সকাল ৭:২৮, ২৬শে জুন, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

শিরোনাম:







আত্মত্যাগ কখনো বৃথা যায় না: প্রধানমন্ত্রী

পানকৌড়ি নিউজ: ‘একাত্তরের মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে আত্মত্যাগকারী শহীদ বুদ্ধিজীবীদের অবদানের কথা স্মরণ করে আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, এদেশের জন্য বুদ্ধিজীবীরা জীবন দিয়ে গেছেন, তাদেরকে নির্মমভাবে হত্যা করা হয়েছিল। এমনকি নামটাও তো মুছে ফেলা হয়েছিল। কিন্তু সেটা তো মুছে ফেলতে পারেনি। কারণ আত্মত্যাগ কখনো বৃথা যায় না। কখনো বৃথা যায় নাই।’

শনিবার (১৪ ডিসেম্বর) ‘বিকেলে রাজধানীর কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশনে শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ সভার আয়োজন করে।’

‘সভায় ১৫ আগস্টের হত্যাকাণ্ডের প্রসঙ্গ তুলে আওয়ামী লীগ সভাপতি বলেন, এটা তো শুধু একটা হত্যাকাণ্ডই ছিল না। আমাদের বিজয়কে নস্যাৎ করা, বাঙালি জাতির যে উত্থান সেটাকে ধ্বংস করা, বাংলাদেশ নামক যে রাষ্ট্রটা সে রাষ্ট্রটাকে ধ্বংস করার উদ্দেশ্য ছিল।’

শেখ হাসিনা বলেন, ‘ইতিহাস থেকে জাতির পিতার নাম একেবারে মুছে ফেলা এবং একটা মিথ্যা ইতিহাস তৈরি করা, মানুষকে বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করা হয়েছিল। কিন্তু সত্যকে কেউ কখনো একেবারে মুছে ফেলতে পারে না। আজকে সেটা প্রমাণ হয়েছে সারা বিশ্বের কাছে। আজকে প্রমাণ হয়েছে বাংলাদেশের জনগণের কাছে। আজকের প্রজন্ম সঠিক ইতিহাস জানার সুযোগ পেয়েছে। ভবিষ্যতে আর কেউ পারবে না এটা মুছে ফেলতে।’

‘বাংলাদেশের মানুষকে সচেতন থাকার আহ্বান জানিয়ে সরকারপ্রধান বলেন, বাংলাদেশের মাটিতে মীর জাফর মোশতাক থেকে শুরু করে বেইমানের জন্ম বারবার হয়েছে। খুনি জিয়ার মতো বারবার খুনির এসেছে। ভবিষ্যতে এদেশের মানুষের ভাগ্য নিয়ে কেউ যেন ছিনিমিনি খেলতে না পারে সে দায়িত্বটা বাংলাদেশের জনগণকে নিতে হবে। আমাদের তরুণ সমাজকে নিতে হবে। প্রজন্মের পর প্রজন্মকে এ ব্যাপারে সচেতন থাকতে হবে।’