সকাল ৮:২৫, ২৬শে জুন, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

শিরোনাম:







পুলিশ বদলে যাচ্ছে প্রধানমন্ত্রীর প্রেরণায়

পানকৌড়ি নিউজ: আইন-শৃঙ্খলা রক্ষা থেকে শুরু করে অপরাধ দমন, ‘অপরাধীদের গ্রেফতার, মামলা গ্রহণ এবং বিচারে সহায়তা সব কাজ সামলাতে হয় পুলিশকেই। আবার সড়কে শৃঙ্খলা, ভিআইপি নিরাপত্তা বা প্রটোকলের দায়িত্বও এ বাহিনীর কাঁধেই।’

শুধু কী তাই? ‘গোয়েন্দা তথ্য সংগ্রহ ও প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা নেওয়ার কাজও সমানতালেই করতে হয় তাদের। এতোকিছুর পরেও পুলিশ সম্পর্কে এখনও নেতিবাচক ধারণা পুরোপুরি বদলাচ্ছে না।’

‘মূলত গুটিকয়েক পুলিশ সদস্যের নিয়মবহির্ভূত কান্ডকীর্তি সাধারণ মানুষের মাঝে অনেক সময় উল্টো অসন্তোষ তৈরি করে। জনআস্থার চেয়ে কেন অনাস্থার মাত্রা রয়ে যাচ্ছে এমন ‘রহস্যভেদ’ করেছে পুলিশ সদর দপ্তর।’

আইনের শাসন নিশ্চিত ও উন্নয়ন টেকসই করতে সততা, দেশপ্রেম, পেশাদারিত্ব ও অসীম সাহসিকতার সঙ্গে দায়িত্ব পালনের মাধ্যমে পুলিশের ভূমিকাকে আরও উজ্জ্বল করার মধ্যে দিয়ে ‘জনবান্ধব’ পুলিশ হিসেবে গড়ে তোলার উদ্যোগ নিয়েছে সরকার।

অপরাধ নির্মূলসহ সমসাময়িক অপরাধ মোকাবেলায় পুলিশের সক্ষমতা বাড়ানোর পাশাপাশি এসব চ্যালেঞ্জ শক্তহাতে মোকাবেলা করতেও কঠোর নির্দেশনা দিয়ে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী। পুলিশ বাহিনীর বিভাগীয় ও পেশাগত স্পন্দন অনুভব করেই জনবল, বেতন-ভাতাসহ সব রকমের সুযোগ সুবিধা তিনি বাড়িয়েছেন’

‘পুলিশ বান্ধব’ ‘প্রধানমন্ত্রীর এমন নির্দেশনা আর সাধারণ মানুষের আবেগ-অনুভূতির সঙ্গে একাত্ন হয়ে, তাদের প্রতি অধিক সংবেদনশীলতা, সহমর্মিতা এবং জনসেবার মূল্যবোধের অধিকারী হয়ে পেশাদারিত্বের সঙ্গেই নিজ বাহিনীর সদস্যদের দায়িত্ব পালন করার ‘কঠোর বার্তা’ দিয়ে যাচ্ছেন পুলিশ মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড.মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী, বিপিএম (বার)।’

‘পুলিশ প্রধান নিজ বাহিনীর সদস্যদের সব সময়ই বলে যাচ্ছেন, মানুষ বিপদে পড়লেই থানায় যায়। ফলে থানায় কাঙ্খিত সেবা না পেয়ে যদি তাদের হতাশা নিয়ে বাড়ি ফিরতে হয় তবে এজন্য দায়ী পুলিশ কর্মকর্তাদের বিষয়ে নিজের সুর চড়া করেছেন।’

‘নিজেদের ওপর অর্পিত দায়িত্বকে কেবলমাত্র ‘রুটিন ওয়ার্ক’ হিসেবে না ভেবে জনসাধারণের সমস্যাকে একান্ত আন্তরিক ও মানবিক দৃষ্টিকোণ থেকে দেখার অনুশাসনও দিয়েছেন নিরাপত্তা ও শৃঙ্খলার প্রতীক হিসেবে বিবেচিত বাহিনীটির এই সর্বোচ্চ কর্মকর্তা।’