বিকাল ৪:৫৫, ৩০শে জুন, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

শিরোনাম:







কাউন্সিলরের বাড়িতে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ, গ্রেপ্তার ৩

পানকৌড়ি ডেস্ক: ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) ‘এক শিক্ষার্থীকে ধর্ষণের ঘটনায় উত্তাল পরিস্থিতির মধ্যে এবার রাজশাহীর গোদাগাড়ী পৌরসভার এক কাউন্সিলরের বাড়িতে নবম শ্রেণির এক ছাত্রীকে (১৪) স্কুলছাত্রীকে গণধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। সোমবার সন্ধ্যায় ধর্ষণের ঘটনার পর রাতেই মামলা করেন ওই ছাত্রীর মা। এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে রাতেই ওই কাউন্সিলরের ছেলে ও তার দুই সহযোগীকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।’

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন- ‘রাজশাহীর গোদাগাড়ী পৌরসভার ৬ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর শহীদুল ইসলামের ছেলে পৌরসভার শ্রীমান্তপুর এলাকার অধিবাসী ওসমান গণি (১৬), খন্দকার মো. ওবাইদুল হকের ছেলে রিদুয়ার আলী খন্দকার (১৬) ও পৌরসভার জোদগোমাইদাস এলাকার মোস্তফার ছেলে তারেক রহমান (১৭)। তারা সবাই গোদাগাড়ী সরকারি হাই স্কুল অ্যান্ড কলেজের শিক্ষার্থী।’

গোদাগাড়ী মডেল থানার ওসি খায়রুল ইসলাম জানান, ‘ধর্ষণের শিকার ওই ছাত্রীর সঙ্গে তার সহপাঠী গোদাগাড়ী সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজের নবম শ্রেণির ছাত্র রিদওনাল আলী খন্দকার মোস্তাকিমের (১৪) এক বছর ধরে প্রেমের সম্পর্ক ছিলো। জিনিয়াস কোচিং সেন্টারের লেখাপড়া করার সুবাদে তাদের মধ্যে সম্পর্ক হয়। সোমবার সন্ধ্যায় জন্মদিনের পার্টিতে দাওয়াতের কথা বলে ওই ছাত্রীকে ফুঁসলিয়ে তাদের আরেক বন্ধু ওসমান গণির (১৪) ফাঁকা বাসায় নিয়ে যায় সে। এ সময় ছাত্রীকে ধর্ষণ করে মোস্তাকিম। বাড়ির বাইরে পাহারা দেয় আসামি ওসমান গণি ও দশম শ্রেণির ছাত্র তারেক আলী (১৫)। সময় ওই বাসায় কেউ ছিল না।’

‘পরে বাড়ি ফিরতে দেরি হলে মেয়েটি তার মায়ের জিজ্ঞাসাবাদে ঘটনা খুলে বলে। এরপর তার মা মোস্তাকিম ও তার দুই সহযোগীকে আসামি করে গোদাগাড়ী মডেল থানায় মামলা করেন। মামলা দায়েরের পর রাতেই পুলিশ তিন আসামিকে গ্রেপ্তার করে। মঙ্গলবার সকালে আদালতের মাধ্যমে তাদের কারাগারে পাঠানো হয়েছে।’