রাত ১:২৭, ২৯শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ







ক্যালেন্ডার দেখে ভোটের তারিখ নির্ধারণ হয়েছে: ইসি সচিব

পানকৌড়ি নিউজ: অনুমোদিত সরকারি ক্যালেন্ডার দেখে ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ভোটের তারিখ নির্ধারিত হয়েছে বলে জানিয়েছেন নির্বাচন কমিশনের (ইসি) সিনিয়র সচিব মো. আলমগীর। তিনি বলেন, ‘ভোটের তারিখ নির্ধারণের আগে পূজার বিষয়টি অবশ্যই বিবেচনায় এসেছে’।

‘কারণ কমিশন যখন কোনও সিডিউল ঘোষণা করে তখন কমিশনের সামনে সব তথ্য-উপাত্তসহ অনুমোদিত সরকারি ক্যালেন্ডার দেওয়া হয়। সেই ক্যালেন্ডারে আমরা দেখেছি সরস্বতী পূজার তারিখ দেওয়া আছে ২৯ জানুয়ারি’।

সেটা দেখেই ২৯ তারিখ নির্বাচন না দিয়ে ৩০ জানুয়ারি নির্ধারণ করা হয়েছে। ‘সরস্বতী পূজার কারণে ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ভোটের তারিখ পরিবর্তনের দাবির প্রসঙ্গে মঙ্গলবার (৭ জানুয়ারি) সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এ কথা জানান’।

এর আগে সকালে বাংলাদেশ হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ ও বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ প্রধান নির্বাচন কমিশনারের (সিইসি) কাছে চিঠি দিয়ে ভোটের তারিখ পরিবর্তনের দাবি জানান। ‘আগামী ৩০ জানুয়ারি সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সরস্বতী পূজার কারণে এই দাবি জানানো হয়’।

এর আগে একই কারণে নির্বাচন পেছানোর দাবি তুলেছিল বাংলাদেশ হিন্দু পরিষদ। ‘এজন্য আদালতে একটি রিটও হয়েছে। সরকারের অনুমোদিত ক্যালেন্ডার অনুযায়ী সরস্বতী পূজা ২৯ জানুয়ারি। চিঠির প্রসঙ্গে ইসি সচিব বলেন, এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত কমিশন নেবে’।

‘একটি ভোটকেন্দ্রে নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে এবং সুষ্ঠুভাবে ভোটগ্রহণের জন্য অন্ততপক্ষে একদিন আগেই নির্বাচন পরিচালনাকারী কর্তৃপক্ষকে সংশ্লিষ্ট শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান তাদের নিয়ন্ত্রণে নিতে হবে। এজন্য একই দিনে পূজা ও ভোট কীভাবে হবে তা বোধগম্য নয়’।

‘এ অবস্থায় সুষ্ঠুভাবে পূজা সম্পাদনের লক্ষ্যে ৩০ জানুয়ারি নির্ধারিত ভোটের দিন পিছিয়ে অন্য কোনোদিন নির্ধারণ করা হোক। অন্যথায় যেসব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে সরস্বতী পূজা হবে সেখানে ভোটকেন্দ্র না করার অনুরোধ করছি’।