সকাল ৭:১১, ৩০শে নভেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

শিরোনাম:







প্রতীক পেলেন দক্ষিণের প্রার্থীরা

পানকৌড়ি নিউজ: প্রতীক বুঝে পেয়েছেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন (ডিএসসিসি) নির্বাচনে অংশ নেওয়া মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থীরা।

শুক্রবার (১০ জানুয়ারি) ‘সকালে বৈধ সাত জন মেয়র প্রার্থীকে নিজ নিজ দলের প্রতীক বরাদ্দ দেয় নির্বাচন কমিশন।’

‘রাজধানীর গোপীবাগে সাদেক হোসেন খোকা কমিউনিটি সেন্টারে স্থাপিত ডিএসসিসি নির্বাচনের রির্টানিং কর্মকর্তার কার্যালয়ে প্রতীক বুঝে নেন মেয়র প্রার্থীরা।’

আওয়ামী লীগের প্রার্থী শেখ ফজলে নূর তাপসের পক্ষে প্রতীক বুঝে নেন আলী আসিফ খান।

বেলা সাড়ে ১০টায় রির্টানিং কর্মকর্তা আবদুল বাতেন প্রতীক বরাদ্দের কার্যক্রম শুরু করেন।

‘মেয়র পদে  আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী শেখ ফজলে নূর তাপস ‘নৌকা’, বিএনপির ইশরাক হোসেন ‘ধানের শীষ’, জাতীয় পার্টির হাজি মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন মিলন ‘লাঙ্গল’, ইসলামী আন্দোলনের মো. আবদুর রহমান ‘হাতপাখা’, ন্যাশনাল পিপলস্ পার্টির (এনপিপি) বাহরানে সুলতান বাহার ‘আম’, বাংলাদেশ কংগ্রেসের মো. আকতার উজ্জামান ওরফে আয়াতুল্লাহ ‘ডাব’ এবং গণফ্রন্টের আব্দুস সামাদ সুজনকে ‘মাছ’ প্রতীক বরাদ্দ করা হয়।’

‘মেয়র প্রার্থীদের প্রতীক বরাদ্দের পর ডিএসসিসির ৭৫টি ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদে প্রতীক বরাদ্দ শুরু হয়েছে। সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৩৩৫ জন প্রার্থীর মধ্যে প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হচ্ছে।’

এরপর ২৫টি সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর পদে ৮২ জন প্রতিদ্বন্দ্বীর মধ্যে প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হবে।

ঢাকা দক্ষিণ সিটি নির্বাচনের রির্টানিং কর্মকর্তা আবদুল বলেন, ‘প্রতীক বরাদ্দের মধ্য দিয়ে প্রার্থীরা এখন আইন মেনে প্রচারণা চালাতে পারবেন।’

তিনি আরও বলেন, ‘দুপুর দুইটা থেকে রাত আটটা পর্যন্ত মাইকিং করে প্রচারণা চালানো যাবে। প্রার্থীরা নির্বাচন কমিশনের অনুমতি নিয়ে ক্যাম্প স্থাপন করতে পারবেন। সেখানে শুধু নির্বাচনি প্রচারণা চালাতে পারবেন।  কোনও  ধরনের  মিছিল, শো-ডাউন, বড় ধরনের জনসভা ও তোরণ নির্মাণ করা যাবে না। তবে ঘরোয়া বৈঠকে প্রার্থীরা অংশ নিতে পারবেন।’

তিনি আরও বলেন, ‘অনেক প্রার্থীর পোস্টার লাগানো আছে বলে অভিযোগ এসেছে।  যেসব প্রার্থীর পোস্টার আছে তাদের বিষয়টি তদারকি করতে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটকে ইতোমধ্যেই নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।’