বিকাল ৩:৫৪, ৩০শে জুন, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ







আমি নিজেও আবরার হত্যার বিচার চাই বললেন আসামি অমত্যের বাবা

পানকৌড়ি নিউজ: বুয়েট ছাত্র আবরার ফাহাদ হত্যা মামলার আসামি মোর্শেদ অমত্য ইসলামের বাবা বলেছেন, ‘আমার ছেলে নির্দোষ। আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হয়ে স্বেচ্ছায় ছেলেকে আদালতের হাতে তুলে দিয়েছি। আমি নিজেও আবরার হত্যার বিচার চাই।’

রবিবার (১২ জানুয়ারি) ‘আদালত প্রাঙ্গণে মোর্শেদ অমত্যের বাবা মুক্তিযোদ্ধা রবিউল ইসলাম এসব কথা বলেন।’

তিনি বলেন, ‘মামলার অভিযোগপত্রে উল্লেখ আছে আবরার পানি খেতে চেয়েছিল, তাকে পানি দেওয়া হয়নি। তাকে ডাক্তারের কাছেও নিতে দেওয়া হয়নি।’

‘আমার ছেলে আবরারকে পানি খাওয়াতে ও ডাক্তারের কাছে নিতে চেয়েছিল। কিন্তু রবিন তা শুনে নাই। আবরারকে বাঁচনোর জন্য আপ্রাণ চেষ্টা করেছিল আমার ছেলে মোর্শেদ। এজন্য রবিন মোর্শেদকে শিবিরও বলেছিল।’

তিনি আরও বলেন, ‘মোর্শেদ গত ১৯ সেপ্টেম্বর রাজশাহীর গ্রামের বাড়িতে যায়। ৬ অক্টোবর ঢাকায় আসে। প্রথমে সে তার বড় ভাইয়ের বাসায় যায়।’

‘পরে সন্ধ্যা সাড়ে ৭ টায় হলে যায়। মামলায় বলা হয়েছে, ৫ অক্টোবর হলের ক্যান্টিনে আসামিরা আবরারকে হত্যার পরিকল্পনা করে। ওই সময় তো মোর্শেদ গ্রামের বাড়িতে ছিল। সে কী করে আবরারকে হত্যার পরিকল্পনা করে ? আমার ছেলে নির্দোষ। আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হয়েই তাকে আদালতের হাতে তুলে দিয়েছি।’

‘রবিবার সকালে ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রে আদালতে আইনজীবীর মাধ্যমে আত্মসমর্পণ করে জামিনের আবেদন করেন মোর্শেদ অমত্য। শুনানি শেষে বিচারক ইয়াসমিন আরা জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।’