সন্ধ্যা ৭:২১, ২১শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

শিরোনাম:

কিস্তির টাকা দিতে না পাড়ায় গৃহবধূর আত্মহত্যা

ডেস্ক রিপোর্ট: পাবনার ফরিদপুরে কিস্তির টাকা দিতে না পারায় এক গৃহবধূ গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন। নিহত গৃহবধূ উপজেলার সদর ইউনিয়নের হাঙরাগাড়ী গ্রামের হাফিজুল ইসলামের স্ত্রী সাবিনা খাতুন (৩৫)। তার তিন বছর বয়সী একটি পুত্র সন্তান রয়েছে।

মঙ্গলবার (১৫ সেপ্টেম্বর) সকাল ১১টার দিকে‘সিদিপ’ নামের একটি এনজিও কর্মীদের উপস্থিতিতে সে গলায় ফাঁস নেয়।

নিহতের পরিবারের সদস্যদের কাছ থেকে জানা যায়, স্থানীয় সিদীপ নামের একটি এনজিও থেকে হাফিজুল ৭০ হাজার টাকা ঋণ নেন। মহামারি করোনার কারণে দিনমজুর হাফিজুর অভাবে পড়ে যায় এবং তার পাঁচটি কিস্তি বাকি পড়ে। এদিকে আরিফ ও রায়হান নামের দুইজন সিদীপের মাঠকর্মী বাড়ির উপর এসে তার স্ত্রী সাবিনাকে কিস্তি পরিশোধের জন্য চাপ দেন। ঋণের কিস্তি দিতে না পাড়ায় অপমান বোধ থেকে ঘরের ভিতর গিয়ে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন তিনি।

মঙ্গলবার সিদিপের ব্যবস্থাপক মাহমুদুল ইসলাম ও হাঙড়াগাড়ী কেন্দ্রের মাঠকর্মী আরিফুল ইসলাম কিস্তি সংগ্রহের জন্য সাবিনার বাড়িতে যান। সে সময় সাবিনার স্বামী হাফিজুল কিস্তির টাকা সংগ্রহের জন্য বাড়িতে থাকা গম ও মুরগি বিক্রির জন্য হাটে ছিলেন। কিস্তি দিতে দেরি হবে জানার পরে উপস্থিত এনজিও কর্মীর সঙ্গে সাবিনার একটু কথাকাটাকাটি হয়। এর কিছু সময় পরে সবার অলক্ষ্যে সাবিনা নিজ ঘরের আড়ার সঙ্গে নাইলনের দড়ি দিয়ে গলায় ফাঁস নেন। এ সময় তিন বছর বয়সী শিশু সন্তান তার ঘরেই ছিল।

অভিযোগ অস্বীকার করে সিদীপের ম্যানেজার মাহমুদ ইসলাম জানান, কিস্তির জন্য সাবিনাকে কোনো প্রকার চাপ দেওয়া হয়নি বরং সে নিজেই টাকা নেয়ার জন্য আমাদের খবর দিয়েছিল।
ভাঙ্গুড়া থানার ডিউটি অফিসার নাজমুল হোসেন জানান, মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য পাবনা জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। লিখিত অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।