সকাল ৮:২৮, ২৯শে অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

নৈশ কোচে ঘুমন্ত শিশু যৌন নিপীড়নের শিকার. আটক নিপীড়ক

বাবা-মায়ের সঙ্গে ঢাকা যাওয়ার পথে নৈশ কোচে ঘুমন্ত অবস্থায় যৌন নিপীড়নের শিকার হয়েছে ১১ বছরের এক শিশু। নিপীড়ক যুবক জাহিদ খানকে হাতেনাতে আটকের পর গণপিটুনি দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করেছে যাত্রীরা। গ্রেপ্তার জাহিদ মাগুরা সদর থানার জগডাল বাজার এলাকার মো. রউফ খানের ছেলে। বৃহস্পতিবার গভীর রাতে রাজবাড়ীর গোয়ালন্দের দৌলতদিয়া ফেরিঘাট এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

আজ শুক্রবার মেয়েটির বাবা বাদী হয়ে জাহিদ খানের বিরুদ্ধে গোয়ালন্দ ঘাট থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা দায়ের করেছেন।

পুলিশ, মামলার এজাহার ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বৃহস্পতিবার রাতে শিশুটি তার বাবা-মায়ের সঙ্গে সোহাগ পরিবহন নামের একটি নৈশ কোচে করে ঢাকা যাচ্ছিল। যশোর থেকে ছেড়ে আসা ওই বাসটি রাত আড়াইটার দিকে রাজবাড়ীর গোয়ালন্দের দৌলতদিয়া ফেরিঘাটের জিরোপয়েন্ট এলাকায় পৌঁছে যানজটে আটকা পড়ে। সেখানে শিশুটির বাবা বাস থেকে নেমে পাশের এক দোকানে খাবার কিনতে যান। এদিকে বাসের ভেতরে মায়ের সঙ্গে থাকা শিশুটির ঘুম পায়। পরে সে তার মায়ের কথামতো পিছনে খালি সিটের উপরে গিয়ে ঘুমিয়ে পড়ে। এই সুযোগে একই বাসের অপর এক যাত্রী মো. জাহিদ খান (২২) তার নির্দিষ্ট আসন ছেড়ে প্রথমে ওই মেয়েটির পাশের সিটে গিয়ে বসে। পরে সে ঘুমন্ত ওই শিশুর শরীরের হাত দেয়। এতে হঠাৎ ঘুম ভেঙে গেলে শিশুটি চিৎকার করে। সঙ্গে সঙ্গে মেয়েটির মাসহ বাসের ভেতরে থাকা যাত্রীরা গিয়ে জাহিদকে হাতেনাতে আটক করে বাস থেকে নামিয়ে গণপিটুনি দেয়। পরে তাকে থানা পুলিশে সোপর্দ করা হয়।

গোয়ালন্দ ঘাট থানার পরিদর্শক (তদন্ত) ও দায়িত্বপ্রাপ্ত ওসি মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ আল তায়াবীর ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে কালের কণ্ঠকে বলেন, যৌন নিপীড়নের শিকার ওই শিশুর বাবা নিজে বাদী হয়ে আজ শুক্রবার মামলা দায়ের করেছেন। মামলায় গ্রেপ্তার জাহিদকে আজ দুপুরে আদালতের মাধ্যমে তাকে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।