রাত ২:৩৩, ২৯শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ







২০ হাজার কোটি টাকায় আরো ৩২৯টি কারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান

এর আগে টেকনিক্যাল স্কুল ও কলেজ স্থাপন প্রকল্পের প্রথম পর্যায়ে ১০০টি প্রতিষ্ঠান নির্মাণের কাজ চলছে। কিছু প্রতিষ্ঠানের নির্মাণ কাজ শেষ হয়েছে। কতগুলোর কাজ প্রায় শেষের দিকে।

এছাড়া বিদ্যমান ৬৪টি টেকনিক্যাল স্কুল ও কলেজের সক্ষমতা বাড়ানোর একটি প্রকল্পও চলছে।

এ পরিস্থিতিতে সব উপজেলায় একটি করে কারিগরি স্কুল ও কলেজ স্থাপনে গত বছরের প্রথম দিকে প্রকল্পটির দ্বিতীয় পর্যায় গ্রহণের নেয় সরকার।

‘উপজেলা পর্যায়ে ৩২৯টি টেকনিক্যাল স্কুল ও কলেজ (টিএসসি) স্থাপন (২য় পর্যায়)’ শীর্ষক সেই প্রকল্পটিই মঙ্গলবার অনুমোদন দিয়েছে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি (একনেক)।

এনইসি সম্মেলন কক্ষে একনেকের সভায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্ব করেন।

বৈঠকের পর পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান সাংবাদিকদের ব্রিফিংয়ে বলেন, “প্রকল্পটি এবছর থেকে শুরু হয়ে ২০২৪ সালের মধ্যে শেষ করা হবে। প্রধানমন্ত্রী প্রকল্প চলাকালীন সময়েই এসব প্রতিষ্ঠানে দক্ষ শিক্ষকের ব্যবস্থা করার নির্দেশ দিয়েছেন। কারণ আমাদের দেশে কারিগরি খাতে দক্ষ শিক্ষকের অভাব রয়েছে। যেসব শিক্ষককে নিয়োগ দেওয়া হবে তাদেরকে দক্ষতা বাড়ানোর জন্য ট্রেনিং দিতে হবে; প্রয়োজনে বিদেশ পাঠানোর ব্যবস্থা করার নির্দেশও প্রধানমন্ত্রী দিয়েছেন।”

প্রধানমন্ত্রী প্রকল্পটি যথাসময়ে শেষ করার বিশেষ নির্দেশ দিয়েছেন বলেও জানান তিনি।

একনেকের সভায় এই প্রকল্পটিসহ প্রায় ২২ হাজার ৯৪৬ কোটি টাকা ব্যয়ে আট প্রকল্প অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

অন্য প্রকল্পগুলো হচ্ছে-

> বিসিক শিল্প পার্ক সিরাজগঞ্জ (৩য় সংশোধিত) প্রকল্প। এর ব্যয় বৃদ্ধি করা হয়েছে ৯১ কোটি ১১ লাখ টাকা।

> শেখ হাসিনা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল এবং নার্সিং কলেজ স্থাপন (১ম সংশোধিত) প্রকল্প। এর ব্যয় বেড়েছে প্রায় ২৩৪ কোটি টাকা।

> এসআরডিআই এর ভবন নির্মাণ ও সক্ষমতা বৃদ্ধি (সিসিবিএস) প্রকল্প। এতে ব্যয় ধরা হয়েছে ১৪৩ কোটি ৩০ লাখ টাকা।

> কিশোরগঞ্জ জেলার হাওর এলাকার নির্বাচিত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসমূহের উন্নয়ন প্রকল্প। এর ব্যয় ৩৯৩ কোটি ৪১ লাখ টাকা।

> বেতগ্রাম-তালা-পাইকগাছা-কয়রা সড়ক যথাযথমানে উন্নীতকরণ প্রকল্প।এর ব্যয় ধরা হয়েছে ৩৩৯ কোটি ৫৮ লাখ টাকা।

> লক্ষ্মীপুর শহর সংযোগ সড়ক (আর-১৪৫) ও লক্ষ্মীপুর চর আলেকজান্ডার-সোনাপুর-মাইজদী (জেড-১৪০৫) (চেইনেজ ০+০০০ হতে ২+০০০) সড়ক প্রশস্তকরণ” প্রকল্প। এতে ব্যয় হবে ৩৬৯ কোটি ৪৩ লাখ টাকা।

> ভোলা (পরান তালুকদারহাট) চরফ্যাশন (চরমানিকা) আঞ্চলিক মহাসড়ক উন্নয়ন প্রকল্প। এর ব্যয় ৮৪৯ কোটি ৪০ লাখ টাকা।