রাত ১০:০৪, ২৫শে জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

শিরোনাম:







স্বজন হারানোর শোক প্রকাশ করে শুরু হলো বড়দিনের আনুষ্ঠানিকতা

ডেস্ক রিপোর্ট: বৈশ্বিক মহামারি করোনায় প্রিয়জন হারানোর বেদনাকে স্মরণ ও শোক প্রকাশের প্রার্থনা করে আনুষ্ঠানিকতা শুরু হলো বড়দিনের। বৃহস্পতিবার (২৪ ডিসেম্বর) সন্ধ্যা ৭টায় প্রার্থনা শুরু হয় তেজগাঁও ক্যাথলিক চার্চে। প্রার্থনা অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন ফাদার কমল কোরাইয়া।

বড়দিনের এই প্রার্থনায় যোগ দেন খ্রিস্ট ধর্মাবলম্বীরা। তবে করোনা পরিস্থিতির কারণে বিগত বছরের তুলনায় লোক সমাগম অপেক্ষাকৃত কম দেখা যায়। অন্যান্য বছর গির্জায় প্রবেশের মুখে দীর্ঘ লাইন দেখা গেলেও এবার তা চোখে পড়েনি। খ্রিস্ট ধর্মাবলম্বীরা মাস্ক পরে দূরত্ব বজায় রেখে একে একে আসছেন প্রার্থনায় সামিল হতে।

ফাদার কমল কোরাইয়া প্রার্থনায় বলেন, ‘এই বছরটি আমাদের জন্য বিভিন্ন কারণে কঠিন হয়ে দাঁড়িয়েছে। আছে দুঃখ, হতাশা। আমরা আমাদের আত্মীয় পরিজনসহ অনেককেই হারিয়েছি। হারিয়েছি আমাদের অনেক দেশ বরেণ্য ব্যক্তিত্ব। তাদের আত্মার চির কল্যাণ আমরা কামনা করি। আমরা ঈশ্বরের কাছে প্রার্থনা করি, যে মহামারি আজ বিশ্বকে গ্রাস করেছে, সেই করোনার হাত থেকে আমরা যেন মুক্ত ও স্বাধীন হতে পারি। আমরা যেন স্বাধীনভাবে পৃথিবীতে চলাচল করতে পারি। আজকে আমাদের বিশেষ প্রার্থনা থাকবে, আমরা যেন করোনার হাত থেকে রক্ষা পেতে পারি।’

তিনি আরও বলেন, ‘যীশু খ্রিস্ট পৃথিবীতে জন্মেছিলেন যাতে আমরা মুক্ত হতে পারি, স্বাধীন হতে পারি। অনেক সময় আমরা এই পৃথিবীকে অপব্যবহার করেছি, অতিব্যবহার করেছি। আমরা আরও উদার হতে পারতাম।’

এসময় তিনি করোনামুক্ত পৃথিবী কামনায় সবাইকে প্রার্থনার আহ্বান জানান। এরপর প্রার্থনা সংগীত পরিচালনা করা হয়। সংগীত পরিচালনা করেন এসএমআরএ সিস্টাররা আর পাঠ পড়েন শিপ্রা গোমেজ ও মাইকেল কোরাইয়া।