রাত ৮:৪৯, ২৫শে জুন, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ







বিএনপি নির্বাচন থেকে সরতে অজুহাত খুঁজছে: কাদের

বিএনপির অভিযোগ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে জেতার জন্য সরকার সবকিছু ‘ব্যবহার’ করছে। এ ব্যাপারে দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, আমরা উল্টো চিত্রটাই জানি। বিএনপির নির্বাচনে হেরে যাবার আশঙ্কা আছে। বিএনপি নির্বাচন থেকে সরে যাওয়ার জন্য নানামুখি অজুহাত খুঁজছে। শনিবার (২৫ জানুয়ারি) দুপুরে রাজধানীর ব্র্যাক সেন্টারে ব্র্যাক ড্রাইভিং স্কুলে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত ১১জন নারী চালকের মধ্যে সনদপত্র বিতরণ শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন তিনি।

ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএমে) ভোট কারচুপি হবে এমন অভিযোগ না করে বিএনপিকে সুনির্দিষ্ট প্রমাণ দিতে আহ্বান জানান কাদের।

তিনি বলেন, তারা তথ্যপ্রমাণ দিক। কোথায় কোথায় সরকারের মাধ্যমে নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘন দেখছেন। সেটাতো প্রমাণ করতে হবে তার প্রমাণ দিক। দেশবাসী জানুক, শুধু মনগড়া কথা বললে তো হবে না! বিএনপি তো অন্ধকারে ঢিল ছুঁড়ে। অন্ধকারে ঢিল ছোঁড়ার মতো বক্তব্য দিলে তো হবে না। কোথায় সরকার আচরণবিধি লঙ্ঘন করেছে, নির্বাচনকে প্রভাবিত করেছে বলুক। শুধু বললেই হবে না তথ্যপ্রমাণ দিক।

খালেদা জিয়ার মুক্তির ব্যাপারে তার পরিবারের বিশেষ আবেদন করার ব্যাপারে কাদের বলেন, যারা বিশেষ আবেদনের কথা বলছেন, তারা আসলে আবেদন কার কাছে করবেন? আদালত নাকি সরকারের কাছে? বেগম জিয়া কিন্তু এখন আদালতের এখতিয়ারে। এখানে সহমর্মিতা-সহানুভূতির বিষয় নয়, এটা লিগ্যাল ব্যাপার। আসলে, সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম জিয়ার ব্যাপারে সরকারের পক্ষ থেকে সহমর্মিতা বা সহানুভূতির ঘাটতি নাই। কিন্তু এক্ষেত্রে সহানুভূতির কথা বলে তো আমরা আদালতকে প্রভাবিত করতে পারি না।

মন্ত্রী বলেন, আমি বিএনপি নেতাদের বলবো, অন্ধকারে ঢিল না ছুড়ে প্রমাণ দিন, কোথায় ইভিএমে ভোট কারচুপি হয়েছে। সিলেট সিটি করপোরেশনের নির্বাচনেও ইভিএমের দুই কেন্দ্রে বিএনপির প্রার্থী বিজয়ী হয়েছে। সুতরাং ইভিএম নিয়ে বিএনপির অভিযোগ অহেতুক।

খালেদা জিয়ার পরিবার আবেদন করলে কোনো সহমর্মিতা সাথে পাবেন কিনা জানতে চাইলে সেতুমন্ত্রী বলেন, এখানে সহমর্মিতা সহানুভূতি এর বিষয় নয় এটা লিগ্যাল ব্যাপার। আসলে সরকারের পক্ষ থেকে সহমর্মিতা বা সহানুভূতির ঘাটতি তো নাই, খালেদা জিয়া সাবেক প্রধানমন্ত্রী। কিন্তু সহানুভূতির কথা বলে তো আমরা আদালতকে প্রভাবিত করতে পারি না সহমর্মিতা দিয়ে আইনকে প্রভাবিত করাও যায় না।