রাত ৮:০৯, ২১শে জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ







খালেদা জিয়াকে স্তব্ধ করে দিতে চায় সরকার: ফখরুল

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, খালেদা জিয়ার বিদেশে চিকিৎসার জন্য আইন কোনো বাধা নয়। বাধা হলো এই অবৈধ সরকার। তারা গণতন্ত্রের মূল কণ্ঠকে স্তব্ধ করতে দিতে চায়।

বুধবার (১ ডিসেম্বর) বেলা ১১টার দিকে নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে জাতীয়তাবাদী মহিলা দল আয়োজিত মৌন মিছিল কর্মসূচিতে অংশ নিয়ে তিনি এ অভিযোগ করেন।

এদিন খালেদা জিয়ার মুক্তি ও বিদেশে চিকিৎসার দাবিতে আয়োজিত এই কর্মসূচি পালনে পুলিশ বাধা দেওয়ায় দলীয় কার্যালয়ের সামনে সংক্ষিপ্তভাবে সমাবেশ করেন তারা। মির্জা ফখরুল বলেন, আজকে দেশনেত্রী খালেদা জিয়াকে তারা কথা বলতে দিতে চায় না। তাকে রাজনীতি থেকে সরিয়ে দিয়েছে। দেশের মানুষকে মৌলিক অধিকার, ভোটের অধিকার, কথা বলার অধিকার থেকে বঞ্চিত করছে। এর বিরুদ্ধে আমাদের লড়াই করতে হবে।

তিনি বলেন, এই সরকার মৌন মিছিলও ভয় পায়। কারণ তারা চিন্তা করে এই মৌন মিছিলের মধ্য দিয়ে সরকারের পতনের ঘণ্টা যদি বাজতে থাকে। সেজন্য তারা মৌন মিছিল আটকে দিয়েছে।

ফখরুল বলেন, আমাদের জীবন বাজি রেখে লড়াই করতে হবে। ১৯৭১ সালে আমরা যেভাবে লড়াই করেছি, আমাদের মা-বোনেরা যেভাবে সংগ্রাম করেছে, আজকে আবার দেশে গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনার লক্ষ্যে, দেশনেত্রীকে মুক্ত করার লক্ষ্যে তেমনই সংগ্রাম করতে হবে। তার চিকিৎসা করে আবার জনগণের মধ্যে ফিরিয়ে আনতে হবে।

মহিলা দলের সভাপতি আফরোজা আব্বাসের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক সুলতানা আহমেদের পরিচালনায় এ সময় আরও বক্তব্য রাখেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য সেলিমা রহমান, সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, মহিলা দলের সহ-সভাপতি জেবা আমিন খান, নেওয়াজ হালিমা আরলি, নিলুফার চৌধুরী মনি, সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হেলেন জেরিন খান, মহানগর দক্ষিণের সভাপতি রাজিয়া আলিম, সাধারণ সম্পাদক শামসুন্নাহার বেগম, মহানগর উত্তরের সাধারণ সম্পাদক আমেনা খাতুন, নারায়ণগঞ্জ জেলা মহিলা দলের সভাপতি রহিমা শরীফ মায়া, সাধারণ সম্পাদক কাউন্সিলর আয়শা আক্তার হীরা, টাঙ্গাইল জেলা সাধারণ সম্পাদক মমতাজ বেগম প্রমুখ।