সন্ধ্যা ৭:১০, ১৪ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ







সুখী দাম্পত্যের কোচিং দিলেন অজয়-কাজল

অনলাইন ডেস্ক: রূপালি পর্দার তারকাদের সংসার জীবনে কতো চড়াই-উৎরাই। এর মধ্যে বলিউড তারকা অজয় দেবগন ও কাজলের সংসারটা যেন কংক্রিটের চেয়েও শক্ত কিছুতে তৈরি। কীভাবে দাম্পত্য টিকিয়ে রেখেছেন তারা? জানা গেলো কিছু সূত্র-

ভিন্নতাই শ্রেয়

দম্পতির ঝগড়ার অন্যতম কারণ অমত। প্রায়ই একে অন্যকে বলে, ‘তুমি আমার টাইপ নও’। কিন্তু একই টাইপ হতে হবে কেন? কাজল ও অজয় বললেন, ‘দুজনের ভিন্নতাই হতে পারে মিলনের প্রধান বন্ধন। ভেবে দেখুন, দুজন সব কিছুতে হুবহু একই কাজ করে যাচ্ছেন, একই কথা বলছেন। কী ভয়াবহ একঘেয়েমি চলে আসবে তাতে!’ অজয়-কাজল বললেন, তারা দুজনে দুজনের যাবতীয় ভিন্নতাকে শ্রদ্ধা করেন সবার আগে।

বন্ধুমহল আলাদা

অজয় ও কাজলের বন্ধুমহলে কমন অনেকে থাকলেও বেশিরভাগই আলাদা। কেউ কারও জগতে নাক গলান না। কারণ একটাই, আস্থা রাখেন একে অন্যের প্রতি। দুজনই জানেন, তার জীবনসঙ্গী অবাঞ্ছিত কাউকে বন্ধুমহলে জায়গা দেবে না নিশ্চয়ই।

নিজের মতো চলো

কাজল বেশ সামাজিকতা রক্ষা করে চলেন। অজয় অনেকটাই ঘরকুনো। কিন্তু তাতে কেউ কাউকে দোষ দেন না। দু’জনই দু’জনকে নিজের লাইফস্টাইলকে প্রাধান্য দেন।

সাধারণ জীবন

তারকা তো ‍দুজনই। এখন ঘরেও যদি তারকাসুলভ আচরণ করেন, তা হলে কি আর মানায়? অজয়-কাজল দম্পতি তাই ঘরকন্নার কাজে বেছে নিয়েছেন অতি সাধারণ জীবন। যেকোনও অনুষ্ঠানে ঘটা করে কিছু করার বালাই নেই। তাতে কেউ কারোর ওপর মন খারাপ করার সুযোগও পান না। পরিবারের অন্য সদস্যদের সঙ্গেও তাই বোঝাপড়াটা ভালো।

একসঙ্গে চলা

এতো এতো ভিন্নতার কথা হলো, তো স্বামী-স্ত্রী হিসেবে কিছু তো একসঙ্গে করা চাই! কাজল ও অজয় তাই সংসারের যাবতীয় কাজকর্মে গড়েছেন দ্বিপক্ষীয় চুক্তি। যে যতোই স্বাধীনভাবে চলুক না কেন, সংসার সাজাতে কিন্তু একে অপরের পরিপূরক। যেকোনও পরিকল্পনা ও তার বাস্তবায়নে একজন আরেকজনের পরামর্শ নিয়েই ছাড়েন।

সূত্র: টাইমস অব ইন্ডিয়া