সকাল ৮:০৫, ১৫ই এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ







নগ্ন ভিডিও ধারণ, ক্ষমা চাইলেন মিথিলা

বিনোদন ডেস্ক: পুরুষদের শৌচাগারে গোপন ক্যামেরায় একজনের ভিডিওচিত্র ধারণ করে ফেইসবুকে প্রকাশ করায় বিতর্কের মুখে পড়েছেন মিস ইউনিভার্স বাংলাদেশ-২০২০ মডেল তানজিয়া জামান মিথিলা। অবশ্য এর জন্য ক্ষমাও চেয়েছেন এই মডেলকন্যা।

২০১৮ সালে মিথিলার এক সাক্ষাৎকারের ভিডিও সম্প্রতি ভাইরাল হয়েছে ফেসবুকে। সেখানে উপস্থাপকের প্রশ্নের জবাবে মিথিলার সঙ্গে আরেক মডেল সামিরা খান মাহি জানান, মজার ছলে ধারণকৃত সেই ভিডিওটি তারা ফেসবুকেও প্রকাশ করেছিলেন।

তাদের এই কাণ্ডকে ‘হয়রানি’ হিসেবে তুলে ধরে ফেইসবুকে প্রতিবাদ জানিয়েছেন অনেকে। তোপের মুখে এক ফেইসবুক স্ট্যাটাসে ক্ষমাও চেয়েছেন মিথিলা। যদিও পরে সেই স্ট্যাটাসটি ‘হাইড’ করে নেন তিনি।

মিথিলা বলেন, ‘আমি যেটাই করেছি ভুল করেছি। আমি মাফ চাইছি। মানুষ ভুল করে এটাই স্বাভাবিক। ভুল স্বীকার করে ক্ষমা চাওয়ার পর তো আর সেটি নিয়ে প্যাঁচানোর কিছু নাই।’

যে পুরুষের ভিডিওচিত্র ধারণ করা হয়েছিল, সে তার কাছের বন্ধু দাবি করে মিথিলা বলেন, ‘ও যদি বিষয়টাকে হয়রানি মনে না করে, তাহলে মানুষ কেন বললে আমি হয়রানি করেছি তাকে। তারপরও আমি মাফ চেয়েছি। এখন ওরাই আমাকে হয়রানি করছে।’

এদিকে, নানা বিতর্কের মধ্য দিয়ে প্রায় দশ হাজার প্রতিযোগীকে পেছনে ফেলে বিজয়ী হয়েছেন মাগুরার মেয়ে মিথিলা। গত ৩ এপ্রিল মিস ইউনিভার্স বাংলাদেশ হিসেবে তার নাম ঘোষণা করা হয়। যিনি আগে থেকেই মডেল হিসেবে পরিচিত। মডেলিংয়ের পাশাপাশি তিনি ‘রোহিঙ্গা’ নামে বলিউডের একটি ছবিতেও অভিনয় করেছেন।

মিস ইউনিভার্স বাংলাদেশ নির্বাচিত হওয়ার পর মিথিলার বয়স নিয়েও তৈরি হয়েছে বিতর্ক। মিস ইউনিভার্সের নীতিমালায় সর্বনিম্ম ১৮ থেকে সর্বোচ্চ ২৮ বছরের নারীদের অংশগ্রহণের সুযোগের কথা বলা হলেও তার বয়স সর্বোচ্চ সীমা অতিক্রম করেছে বলে কথা রটেছে। এর আগে, আরেক প্রতিযোগী শান্তা পাল তার বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলেছিলেন, মিথিলা নিয়ম ভেঙে অডিশনে অংশ নিয়েছেন। তবে এসব অভিযোগ অস্বীকার করেছেন মিথিলা।