সন্ধ্যা ৬:২৫, ১৪ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ







স্বাগত ১৪২৮: অগ্নি স্নানে শুচি হোক ধরা

আজ পহেলা বৈশাখ। বাংলা নববর্ষ ১৪২৮। ১৪২৭ সনকে বিদায় জানিয়ে বাংলা বর্ষপঞ্জিতে যুক্ত হলো নতুন বছর। গত বছরের মতো এবারও আনন্দের সময় কেড়ে নিচ্ছে করোনাভাইরাস।

‘মুছে যাক গ্লানি ঘুচে যাক জরা, অগ্নি স্নানে শুচি হোক ধরা’। প্রতিবছর রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের এই পঙক্তিতে উচ্চারণ করে বৈশাখকে আবাহন জানানো হয়। কিন্তু গত বছরের মতো এবারও করোনা পরিস্থিতির কারণে আড়ম্বরপূর্ণ বৈশাখ উদযাপন করা যায়নি।

এবারও বৈশাখের প্রথম প্রভাতে রমনার বটমূলে ছায়ানট কোন অনুষ্ঠান করেনি। বের হয়নি চারুকলার শিক্ষার্থীদের মঙ্গল শোভাযাত্রা। চারুকলা অনুষদে দিনব্যাপী চলবে না পুতুলনাচ ও নাগরদোলা। মানুষের ঢল নামবে না রমনা শাহবাগে।

বাংলা নববর্ষ উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পৃথক বাণীতে দেশবাসীসহ বাঙালিদের আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন। নববর্ষ উপলক্ষে আজ সরকারি ছুটি।

করোনা সংক্রমণ এড়াতে এবারও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে স্বশরীরে কোনো মঙ্গল শোভাযাত্রা হবে না। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে এমন নির্দেশনা দেওয়ার পর সীমিত আকারে প্রতীকী মঙ্গল শোভাযাত্রার আয়োজন করে চারুকলা কর্তৃপক্ষ। সেখানে সাধারণ জনগণ উপস্থিত থাকতে পারবেন না।

আজ যা নতুন, সময়ের ছুটে চলায় তা পেছনে পড়ে। পুরোনো হয়। সেই অমোঘ নিয়মে পুরোনো হলো আরও একটি বছর। কবিগুরু রবীন্দ্রনাথের ভাষায়- ‘বৎসরের আবর্জনা দূর হয়ে যাক/ যাক পুরাতন স্মৃতি, যাক ভুলে যাওয়া গীতি/ অশ্রুবাষ্প সুদূরে মেলাক…।’