বিকাল ৩:১৬, ১লা ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

শিরোনাম:







বিশ্বজুড়ে দৈনিক মৃত্যু-শনাক্ত বেড়েছে

করোনাভাইরাসে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ৪ হাজার ৬৬৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। এসময় রোগী শনাক্ত হয়েছে ৩ লাখ ২৫ হাজার ৬৬৮ জন। এর আগে গতকাল সোমবার (১৮ অক্টোবর) ৪ হাজার ২২৩ জনের মৃত্যু এবং ৩ লাখ ৩৫৬ জন রোগী শনাক্ত হয়।

মঙ্গলবার (১৯ অক্টোবর) সকালে করোনায় আক্রান্ত, মৃত্যু ও সুস্থতার হিসাব রাখা ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটারস থেকে এসব তথ্য পাওয়া গেছে।

ওয়ার্ল্ডোমিটারসের তথ্য মতে, বিশ্বে এখন পর্যন্ত মোট ৪৯ লাখ ১৯ হাজার ৩৮৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। রোগী শনাক্ত হয়েছে ২৪ কোটি ১৮ লাখ ৩৮ হাজার ৫৬৪ জনের।

এদিকে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় সবচেয়ে বেশি আক্রান্তের ঘটনা যুক্তরাজ্যে। দেশটিতে নতুন করে আক্রান্ত ৪৯ হাজার ১৫৬ জন এবং মৃত্যু ৪৫ জনের। এখন পর্যন্ত মোট আক্রান্ত ৮৪ লাখ ৯৭ হাজার ৮৬৮ জন এবং মৃত্যু ১ লাখ ৩৮ হাজার ৬২৯ জনের।

যুক্তরাষ্ট্রে একদিনের ব্যবধানে করোনার আক্রান্ত ও মৃত্যুর ঘটনা দ্বিগুণের বেশি বেড়েছে। দেশটিতে নতুন আক্রান্ত হয়েছেন ৩৯ হাজার ৭৬৮ জন এবং মারা গেছেন ৫৩১ জন। এখন পর্যন্ত মোট আক্রান্ত হয়েছেন ৪ কোটি ৫৮ লাখ ৮১ হাজার ৭৬৭ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ৭ লাখ ৪৫ হাজার ৭৪০ জনের।

দৈনিক মৃত্যুর তালিকায় শীর্ষে রয়েছে রাশিয়া। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে ৯৯৮ জনের মৃত্যুর পাশাপাশি রোগী শনাক্ত হয়েছে ৩৪ হাজার ৩২৫ জন। এ পর্যন্ত মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ৮০ লাখ ২৭ হাজার ১২ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ২ লাখ ২৪ হাজার ৩১০ জনের।

ব্রাজিল আক্রান্তের দিক থেকে তৃতীয় ও মৃত্যুর সংখ্যায় তালিকার দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে মারা গেছেন ১৯৭ জন এবং সংক্রমিত হয়েছেন ৭ হাজার ৪৪৬ জন। এ পর্যন্ত দেশটিতে মোট রোগী শনাক্ত হয়েছেন ২ কোটি ১৬ লাখ ৫১ হাজার ৯১০ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ৬ লাখ ৩ হাজার ৫২১ জনের।

এদিকে আক্রান্তের তালিকায় ভারত দ্বিতীয় অবস্থানে থাকলেও মৃতের তালিকায় দেশটির অবস্থান তৃতীয়। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে মারা গেছেন ১৬৪ জন এবং আক্রান্ত হয়েছেন ১২ হাজার ৩৩৮ জন। এ পর্যন্ত দেশটিতে মোট আক্রান্ত ৩ কোটি ৪০ লাখ ৯৩ হাজার ৩৮৭ জন এবং মারা গেছেন ৪ লাখ ৫২ হাজার ৪৮৫ জন।

এছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় ইরানে ১৮১ জন, তুরস্কে ২১৪, ইউক্রেনে ১৭৭, মেক্সিকোতে ৬০ জন মারা গেছে।

প্রসঙ্গত, ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীন থেকে সংক্রমণ শুরু হওয়ার পর বিশ্বব্যাপী ছড়িয়েছে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস। গত বছরের ১১ মার্চ করোনাভাইরাস সংকটকে মহামারি ঘোষণা করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)।