ভোর ৫:৩৪, ৩১শে জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ







মাড়িয়া ইউপির অধিকাংশের জন্মসনদে ভূল অতিরিক্ত ফি আদায়ের অভিযোগ

রাজশাহী প্রতিনিধি: রাজশাহীর দুর্গাপুর উপজেলার ৬নং  মাড়িয়া ইউনিয়নে অধিকাংশে জন্মসনদে একাধিক ভূল সংশোধনীতে অতিরিক্ত অর্থ আদায়ের অভিযোগ।

ইউপির প্রায় ১৫ হাজার মানুষের, নিজের নাম,পিতার নাম বিশেষ করে জন্মতারিখ ভুল সেটি নিয়ে বিপাকে পড়েছেন হাজারো শিক্ষার্থী, অভিভাবক। লালফিতার দৌরাত্ম্যে অতিষ্ঠ হয়ে প্রয়োজনের তুলনায় অতিরিক্ত ফি দিয়েও মিলছে না কাঙ্ক্ষিত জন্মসনদ ফলে ভোগান্তিতে হাজারো মানুষ।

এবিষয়ে আব্দুল মোতালেব জানান,  আমার ছেলের জন্মসনদে একাধিক ভূল সংশোধনের জন্য একটি কাগজ বের করতেই ১০০ টাকা নিলো মিজান, সেটি পুরোন করে জমা দিতে ৫০ টাকা কাজের কাজ কিছুই হলোনা একটি রশিদও দিলো না। যার থেকে যেভাবে পারছে নিচ্ছে এক কথায় হরিলুট করছে।

বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী মনিরুজ্জামান জানান, সংশোধনের ফি দিয়ে দীর্ঘ তিনমাস ইউনিয়ন পরিষদের ঘুরছি তবুও  সংশোধন করতে পারিনি এক সাথে এতো মানুষের ভুল এটা কি ইচ্ছাকৃত?   নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক শিক্ষার্থী জানায় আমি ১৫০ টাকা দিয়ে আবেদন করেছি ১৫ দিন যাবৎ ঘুরছি কবে সংশোধিত কপি পাবো জানা নেই।

প্রকৃত অর্থে মাড়িয়া ইউপির  জন্মসনদে তারিখ সংশোধন ফি ১০০ টাকা ও নাম ঠিকানা সংশোধন ফি ৫০ টাকা নির্ধারিত রয়েছে। মানুষ ভেদে বিভিন্ন অংকের অর্থ আদায় করা হচ্ছে।  সরজমিন ঘুরে দেখাযায় সেবা নিতে আশা মানুষের লম্বা লাইন নানা ত্রুটির ভোগান্তিতে সাধারণ মানুষ। এ পরিষদে টাকা ছাড়া একটি কাজ’ও হয়না।

এবিষয়ে মাড়িয়া ইউপির সচিব হাসানুজ্জামান জানান, ১৫, ১৬ হাজার নয় কিছু ভুল হয়েছে। এটা সারা বাংলাদেশে একই অবস্থা। আর নির্ধারিত ফ্রী ৫০ টাকার বেশি নেওয়া হচ্ছে না এমন অভিযোগ ভিত্তিহীন।

ইউপি চেয়ারম্যান হাসান ইমাম ফারুক (সুমন) জানান, এগুলো পূর্বের হালনাগাদের ভুল। নির্ধারিত ফ্রী এর বেশি নেওয়া হচ্ছে এমন অভিযোগ পাইনি, পেলে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এবিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইউএনও মহসিন মৃধা জানান, আমার কাছে সকল আবেদন নিষ্পত্তি হয়েছে নতুন করে কোনো অবেদন জমা নেই। ফি ৫০ টাকার বেশি নেওয়া সুযোগ নেই এমন অভিযোগ পেলে ব্যাবস্থা নেওয়া হবে।