ভোর ৫:৫৩, ১৫ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

শিরোনাম:







শেখ হাসিনা স্টেডিয়ামে ‘নারী বিশ্বকাপ ফাইনাল’ আয়োজনের ইচ্ছে পাপনের

২০২৪ সালের বিশ্বকাপ আসরে খেলবে ১০টি দেশ। সেপ্টেম্বর-অক্টোবরে অনুষ্ঠিত হওয়া ১০ দলের এই আসরে মোট ম্যাচ হবে ২৩টি। বিশ্বকাপ ক্রিকেট বাংলাদেশ এখন পর্যন্ত এককভাবে আয়োজন করতে না পারলেও ২০১৪ সালে নারী-পুরুষ দুই বিভাগেরই টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ ক্রিকেট আয়োজন করেছিল বিসিবি। দীর্ঘ ১০ বছর পর বাংলাদেশে আয়োজন হতে যাচ্ছে নারী বিশ্বকাপের আসর।

বিশ্বকাপ শুরু হতে এখনও বাকি দুই বছর। স্টেডিয়ামের কাজও শুরু হয়নি। ওই হিসেবে এখন থেকেই পরিকল্পনা শুরু করে দিয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। দেশের বেশ কয়েকটি স্টেডিয়াম সংস্কারের সঙ্গে প্রস্তাবিত শেখ হাসিনা স্টেডিয়ামেরও দ্রুত নির্মাণকাজ শুরু করতে চায় বিসিবি। এমনকি এই মাঠেই ২০২৪ সালের নারী টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ফাইনাল আয়োজন করার প্রত্যাশার কথা জানিয়েছেন বিসিবি প্রধান নাজমুল হাসান পাপন।

রোববার (৩১ জুলাই) দেশে ফিরে হযরত শাহজালাল আর্ন্তজাতিক বিমানবন্দরে নাজমুল হাসান পাপন জানিয়েছেন, কাজটা কঠিন হলেও সর্বোচ্চ চেষ্টা করা হবে ফাইনাল ম্যাচটা শেখ হাসিনা স্টেডিয়ামে আয়োজনের। পূর্বাচলে শেখ হাসিনা স্টেডিয়ামের কাজ যদি শেষ করতে পারি। ওটার মধ্যে আমরা শুধু মেয়েদের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ফাইনালটা আয়োজন করতে পারলে খুব ভালো হয়। এই টার্গেটটা নিয়েই নামবো, না হলে বিকল্প তো আছেই।’

ঘরের মাঠে বিশ্বকাপ আয়োজন হওয়ায় নারীদের সাম্ভাব‌্য সেরা প্রস্তুতি দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন নাজমুল হাসান, ‘আমাদের মেয়েরা নিজেরা নিজেরাই ভালো করছে। আসলে আমরা তো তাদেরকে তেমন কিছু করতে পারিনি। একটা সময় তাদেরকে বাইরে থেকে কোচ দিয়েছিলাম। এশিয়া কাপে যেবার চ্যাম্পিয়ন হলো সেবার কিন্তু পুরো কোচিং স্টাফ ছিল। তবে এখন কোচিং স্টাফও নেই। আমাদের এখনই ফিজিও, কোচ, ট্রেনার যা যা লাগবে সব নিতে বলেছি।’

বোর্ড প্রধান আরও যোগ করে বলেছেন, ‘আমি ওখানে বার্মিংহাম থেকেই ফোন করি। তৌহিদকে ফোন করি, সালমা ও কয়েকজন খেলোয়াড়ের সঙ্গে কথা বলি, রুমানাও ছিল। আমি কয়েকজনকে ফোন করি যে কী কী লাগবে প্রস্তুত করো। আমাদের হাতে খুব বেশি সময় নেই। এটা একটা চ্যালেঞ্জিং ব্যাপার। বিশ্বকাপে যে দলগুলো খেলে, কয়েকটা দল খুবই শক্তিশালী। উদাহরণ হিসেবে ইংল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়া অবিশ্বাস্য। অন্য যারা আছে তারাও খুব ভালো লড়াই করছে। এদিকে ভারত-পাকিস্তান তো শক্তিশালী আছেই, ধারাবাহিক খেলার মধ্যেও আছে। আমাদের মেয়েদের পরিকল্পনা নিয়ে বসতে হবে। বাংলাদেশে বিশ্বকাপ হচ্ছে আমাদের মেয়েরা যেন ভালো লড়াই করতে পারে।’