রাত ৩:০০, ১৬ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

শিরোনাম:







ফের বাড়লো স্বর্ণের দাম

দেশের বাজারে আবারও সোনার দাম বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাংলাদেশ জুয়েলার্স সমিতি (বাজুস)। ভালো মানের স্বর্ণের ভরিতে বেড়েছে ১ হাজার ৪৯ টাকা। এ নিয়ে এক সপ্তাহে তিন দফা স্বর্ণের দাম বাড়ানো হলো।

বুধবার (৩ আগস্ট) এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানায় বাজুস। আগামীকাল বৃহস্পতিবার থেকে দেশে নতুন দাম অনুযায়ী স্বর্ণ কেনাবেচা হবে।

২২ ক্যারেটের প্রতি ভরি স্বর্ণের দাম নির্ধারণ করা হয়েছে ৮২ হাজার ৩৪৮ টাকা। যা এতদিন বিক্রি হচ্ছিল ৮১ হাজার ২৯৮ টাকায়।

ভালো মানের স্বর্ণের পাশাপাশি বাড়ানো হয়েছে সব ধরনের স্বর্ণের দাম। মান অনুযায়ী প্রতি ভরি স্বর্ণের দাম বাড়ানো হয়েছে ৫২৫ টাকা থেকে এক হাজার ৫০ টাকা পর্যন্ত। তবে রুপার দামে কোনো পরিবর্তন আসেনি।

বাজুস বলছে, স্থানীয় বাজারে দাম বাড়ার প্রেক্ষিতেই নতুন দাম নির্ধারণ করা হয়েছে। বাজুসের নতুন সিদ্ধান্ত অনুযায়ী বৃহস্পতিবার থেকে ভালো মানের ২২ ক্যারেটের প্রতি ভরি (১১ দশমিক ৬৬৪ গ্রাম) সোনায় খরচ পড়বে ৮২ হাজার ৩৪৭ টাকা। ২১ ক্যারেটের খরচ পড়বে ৭৮ হাজার ৬১৫ টাকা।

এছাড়া ১৮ ক্যারেটের প্রতি ভরি সোনার দাম পড়বে ৬৭ হাজার ৪১৭ টাকা। সনাতন পদ্ধতির প্রতি ভরির দাম পড়বে ৫৫ হাজার ৬৯৫ টাকা।

রুপার দাম অপরিবর্তিত রাখা হয়েছে। ক্যাটাগরি অনুযায়ী ২২ ক্যারেটের প্রতি ভরি রুপার দাম নির্ধারণ করা হয়েছে ১৫১৬ টাকা। ২১ ক্যারেট রুপার দাম ১৪৩৫ টাকা, ১৮ ক্যারেটের দাম ১২২৫ টাকা এবং সনাতন পদ্ধতির রুপার দাম ৯৩৩ টাকা।

এর আগে গত ২৭ ও ৩০ জুলাই দুই দফা স্বর্ণের দাম বাড়ানো হয়। সেই হিসেবে এক সপ্তাহে তিন দফা স্বর্ণের দাম বাড়ানো হলো।

গত ৩০ জুলাই ২২ ক্যারেটের প্রতি ভরি স্বর্ণের দাম দুই হাজার ৭৪১ টাকা বাড়িয়ে ৮১ হাজার ২৯৮ টাকা, ২১ ক্যারেটের প্রতি ভরি স্বর্ণের দাম দুই হাজার ৫৬৬ টাকা বাড়িয়ে ৭৭ হাজার ৫৬৬ টাকা, ১৮ ক্যারেটের প্রতি ভরি স্বর্ণের দাম এক হাজার ৯২৫ টাকা বাড়িয়ে ৬৬ হাজার ৪৮৫ টাকা এবং সনাতন পদ্ধতির স্বর্ণের দাম ভরিতে দুই হাজার ৪৫০ টাকা বাড়িয়ে ৫৫ হাজার ১৭১ টাকা করা হয়।

এর আগে ২৭ জুলাই  ২২ ক্যারেটের প্রতি ভরি স্বর্ণের দাম এক হাজার ৩৪১ টাকা বাড়িয়ে ৭৮ হাজার ৫৫৭ টাকা করা হয়। এছাড়া ২১ ক্যারেটের প্রতি ভরি স্বর্ণের দাম এক হাজার ২৮৪ টাকা বাড়িয়ে ৭৫ হাজার টাকা এবং ১৮ ক্যারেটের প্রতি ভরি স্বর্ণের দাম এক হাজার ৩৪১ টাকা বাড়িয়ে ৬৪ হাজার ৫৬০ টাকা করা হয়।

সেসময় অপরিবর্তিত রাখা হয় সনাতন পদ্ধতির স্বর্ণের দাম।