রাত ৪:১৫, ১৬ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

শিরোনাম:







জাপানের অর্থনৈতিক অঞ্চলে চীনা ক্ষেপণাস্ত্রের আঘাত

চীনের ছোড়া ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র প্রথমবারের মতো জাপানের এক্সক্লুসিভ অর্থনৈতিক অঞ্চলে (ইইজেড) আঘাত হেনেছে বলে জানিয়েছেন টোকিওর প্রতিরক্ষামন্ত্রী নোবুও কিশি। বৃহস্পতিবার (৪ আগস্ট) এ তথ্য জানান তিনি।

নোবুও কিশি সাংবাদিকদের বলেন, চীনের উৎক্ষেপিত ৯টি ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্রের মধ্যে পাঁচটি জাপানের ইইজেড-এর মধ্যে আঘাত হেনেছে।

চীন তাইওয়ানের চারপাশে জলসীমায় বড় ধরনের সামরিক মহড়া চালাচ্ছে।

কিশি বলেন, জাপান কূটনৈতিক চ্যানেলের মাধ্যমে চীনের কাছে প্রতিবাদ জানিয়েছে।

এ বিষয়ে তিনি বলেন, এটি গুরুতর সমস্যা, যা আমাদের জাতীয় নিরাপত্তা এবং আমাদের নাগরিকদের নিরাপত্তার ওপর প্রভাব ফেলে।

চীন তাইওয়ানের আশপাশে সর্বকালের সর্ববৃহৎ সামরিক মহড়া চালাচ্ছে। দ্বীপটিকে চীন নিজেদের ভূখণ্ড বলে মনে করে এবং প্রয়োজনে বল প্রয়োগ করে একদিন তা দখল করার ব্যাপারে অঙ্গীকারাবদ্ধ।

বেইজিংয়ের কঠোর সতর্কতা সত্ত্বেও মার্কিন নিম্নপক্ষ প্রতিনিধি পরিষদের স্পিকার ন্যান্সি পেলোসির স্বশাসিত দ্বীপটিতে সফরের মাধ্যমে সামরিক শক্তির প্রদর্শনে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে।

জাপানের দক্ষিণের দ্বীপ অঞ্চল ওকিনাওয়ার কিছু অংশ তাইওয়ানের কাছাকাছি। কিশি বলেন, জাপানের একচেটিয়া অর্থনৈতিক অঞ্চলে (ইইজেড) প্রথমবারের মতো চীনা ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র আঘাত হেনেছে।

ইইজেড জাপানের উপকূলরেখা থেকে ২০০ নটিক্যাল মাইল পর্যন্ত বিস্তৃত, যা দেশটির আঞ্চলিক জলসীমার বাইরে।

৯টি ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপের পরিসংখ্যান জাপানি পক্ষের দাবি। কিশি বলেন, পাঁচটি ক্ষেপণাস্ত্র ওকিনাওয়ার হাতেরুমা দ্বীপের দক্ষিণ-পশ্চিমে আঘাত হেনেছে বলে মনে হচ্ছে।

চীনা সামরিক বাহিনী জানায়, বৃহস্পতিবার মহড়া শুরু হয়েছে এবং তাইওয়ানের পূর্ব দিকে জলসীমায় একটি প্রচলিত ক্ষেপণাস্ত্র ফায়ারপাওয়ার মহড়া চালানো হয়েছে।

বুধবার জাপান এই মহড়া নিয়ে চীনের কাছে উদ্বেগ প্রকাশ করে জানায়, তাদের ইইজেডের সঙ্গে একীভূত সামুদ্রিক অঞ্চলে এই মহড়া করার পরিকল্পনা করা হয়েছে।

মন্ত্রী কিশি মহড়ার বিষয়ে চীনের অভিপ্রায় সম্পর্কে মন্তব্য করতে অস্বীকৃতি জানান। তবে তা সত্ত্বেও চীনকে ‘অত্যন্ত ভয়ঙ্কর’ বলে অভিহিত করেছেন তিনি।

সূত্র : এএফপি, এনডিটিভি