রাত ৪:১২, ১৬ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

শিরোনাম:







প্রেমিকার সঙ্গে দেখা হলো না তামিলনাড়ুর প্রেমকান্তর

পৃথিবী ভালোবাসাময়, অন্তত প্রেমিক-প্রেমিকারা হয়তো এটাই বিশ্বাস করে। প্রেম মানুষকে গড়ে, আবার ভাঙেও। এ প্রেম কখনো সুখের হয়ে আসে, আবার কখনো সব ছিন্নভিন্নও করে দিতে পারে। প্রেমিকার সঙ্গে দেখা করতে ভারতের তামিলনাড়ু থেকে বাংলাদেশে এসেছিলেন প্রেমকান্ত। তবে কথিত প্রেমিকা এবং তার পরিবারের কারও সঙ্গে দেখা করতে না পেরে আক্ষেপ নিয়েই তালতলী ত্যাগ করেন তিনি।

জানা যায়, গত ২৪ জুলাই প্রেমিকার সঙ্গে দেখা করতে ভারতের তামিলনাড়ু থেকে বাংলাদেশে আসেন প্রেমকান্ত। এরপর কথিত প্রেমিকার দেওয়া তথ্যমতে বরিশালে আসেন তিনি। এসে প্রেমিকার সঙ্গে দেখাও করেন। তবে তার প্রেমিকার আরেক প্রেমিক তাকে আটক করে মারধর করেন এবং টাকা নিয়ে যান। এরপর তিনি এয়ারপোর্ট থানায় বিষয়টি জানালে সেখানে তাকে আটকে রেখে পাঠিয়ে দেয়- এমনটাই দাবি ভারতীয় ওই যুবকের।

পরে তিনি গতকাল বৃহস্পতিবার বরগুনা আসেন। বরগুনায় রাত্রি যাপন করার পর আজ শুক্রবার দুপুরে কথিত প্রেমিকার বাড়ির উদ্দেশে তালতলী আসেন। তিনি তালতলী ডাকবাংলোয় এসে ওঠেন।

পরে সে তার কথিত প্রেমিকার বাড়িতে গিয়ে দেখতে পান ঘর তালাবদ্ধ, বাসায় কেউ নেই। সেখান থেকে তিনি পুনরায় ডাকবাংলোয় ফিরে আসলে সেখানে তাকে দেখতে উৎসুক মানুষের ভিড় জমে।

এ বিষয়ে তালতলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সাখাওয়াত হোসেন তপু বলেন, ভারতীয় ওই নাগরিক তালতলীর ডাকবাংলোয় এসে ওঠেন। খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে তার সঙ্গে কথা বলেন। এরপর তিনি দেশে ফেরার কথা বলে তালতলী ত্যাগ করেন।

প্রসঙ্গত, ফেসবুকে পরিচয়ের পর দুজনের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক তৈরি হয় বরগুনার তালতলী উপজেলার এক কলেজছাত্রীর সঙ্গে। টানা তিন বছর ধরে চলছে প্রেম। মেয়েটির পরিবারের সঙ্গেও তৈরি হয়েছে সুসম্পর্ক। দূর থেকে আর নয়, সরাসরি দেখবেন বলে গত ২৪ জুলাই বাংলাদেশে আসেন ভারতের তামিলনাড়ুর যুবক প্রেমকান্ত। এরপর প্রেমিকার নির্দেশনা অনুযায়ী বরিশালে আসেন তিনি।

ভারতীয় ওই নাগরিকের দাবি, বরিশালে তার প্রেমিকার সঙ্গে দেখা হয়। এক পর্যায়ে প্রেমিকার আরেক প্রেমিক দ্বারা মারধরের শিকার হন তিনি। পরে প্রেমিকার সঙ্গে শেষবারের মতো দেখা করতে বরগুনার তালতলীতে আসেন ওই যুবক। সেখানেও প্রেমিকার দেখা না পেয়ে আক্ষেপ নিয়েই তালতলী ত্যাগ করেন তিনি।