রাত ৮:২৪, ২৬শে জুন, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ







সীতাকুণ্ডে কনটেইনার ডিপোতে অগ্নিকাণ্ড-বিস্ফোরণে দগ্ধ আজমের মৃত্যু

চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে বিএম কনটেইনার ডিপোতে অগ্নিকাণ্ড ও বিস্ফোরণে গুরুতর আহত ফায়ার সার্ভিস সদস্য গাউসুল আজম মারা গেছেন। এ নিয়ে সীতাকুণ্ড বিস্ফোরণে মোট নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৪৭ জন।

আজ রবিবার (১২ জুন) ভোরে ঢাকায় শেখ হাসিনা বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আট দিন পর তার মৃত্যু হয়। আবার ফায়ার সার্ভিসকর্মীর মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে ১০ জন হলো।

আজ সকালে শেখ হাসিনা বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটের আবাসিক সার্জন ডা. আইউব হোসেন এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

তিনি সংবাদমাধ্যমকে বলেন, ‘ফায়ার সার্ভিসের সদস্য গাউসুল আজম হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) চিকিৎসাধীন অবস্থায় আজ ভোরে মারা গেছেন। তার শরীরের ৭০ শতাংশ অংশ দগ্ধ ছিল।’

গত ৪ জুন রাতে চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে বিএম কনটেইনার ডিপোতে আগুন লাগে। রাত ১১টার দিকে দাহ্য পদার্থ থাকা বেশ কয়েকটি কনটেইনার বিস্ফোরিত হয়। চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, নিহতদের মধ্যে ২৭ জনের পরিচয় শনাক্ত হয়েছে। এসব মরদেহ তাদের পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। তবে এখনো ১৯ জনের পরিচয় শনাক্ত করা সম্ভব হয়নি।