বিকাল ৫:১৫, ২৫শে জুন, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ







শিক্ষক হেনস্তার প্রতিবাদে মাদারীপুর কলেজ শিক্ষকদের মানববন্ধন

রাকিব হাসান, মাদারীপুর:  ময়মনসিংহের গফরগাঁও সরকারি কলেজে ফরম পূরণের টাকা কমানোর নামে শিক্ষকদের ওপর সন্ত্রাসী হামলা,মারধর, লাঞ্ছনা ও কটুক্তি এবং সরকারি সম্পত্তি ভাঙচুরের প্রতিবাদে বিচার দাবিতে কর্মবিরতি ও মানববন্ধন করেছে বিসিএস সাধারণ শিক্ষা সমিতি মাদারীপুর জেলা শাখা।
রোববার (১২ জুন)  কেন্দ্রীয় কর্মসূচীর অংশ হিসেবে সকাল ১১টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত কর্মবিরতি পালন করে মানববন্ধনে যোগ দেন মাদারীপুর সরকারি কলেজের শিক্ষকরা।
মাদারীপুর সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মোঃ জামান মিয়ার সভাপতিত্বে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, বিসিএস সাধারণ শিক্ষা সমিতি কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির ফরিদপুর অঞ্চলের সাংগঠনিক সচিব ও দর্শন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক কামাল হোসেন, মাদারীপুর সরকারি কলেজ ইউনিটের সম্পাদক বেদানন্দ হালদার, শিক্ষক পরিষদের সম্পাদক মোঃ সাইদুর রহমান, লুৎফর রহমান খান, আবদুস সাত্তার মিয়া, লিটন মোল্যা, গৌর কুমার চৌধুরী, সোহানা বিলকিস, মোঃ আসাদুজ্জামান, আবু তৌফিক আহমেদ, মোহাম্মদ এনামুল হক, মোঃ জুলহাস মিয়া, শরীফ মোঃ হুব্বুল কবির, রাসেল খান, হাফিজুর রহমান, এনায়েত হোসেন মাতুব্বর প্রমুখ।
দর্শন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক কামাল হোসেন বলেন,গত ৮ জুন তারিখে গফরগাও সরকারি কলেজ, ময়মনসিংহ-এ কর্মরত বিসিএস সাধারণ শিক্ষা ক্যাডার কর্মকর্তাদের সাথে যা ঘটেছে তাতে প্রশ্ন ওঠে এরা কোন সংগঠনের ছাত্রনেতা। এরা তো বঙ্গবন্ধুর হাতে গড়া সংগঠনের নেতাকর্মী হতে পারে না, শেখ হাসিনার ছাত্রলীগের নেতাকর্মী হতে  পারে না। এরা বর্বর, অসভ্য এবং সন্ত্রাসী। নিজ শিক্ষকের গায়ে যারা হাত  তুলতে পারে তারা ছাত্র নামধারী কুলাঙ্গার।
এদের ক্ষমা হতে পারে না। আজকের এই মানববন্ধন হতে সরকারের কাছে এইসব নেশাখোর চাঁদাবাজ সন্ত্রাসীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করছি। অতি দ্রুত আইনের আওতায় এনে এদের উচিত শাস্তি অবশ্যই দিতে হবে।
 আরো বলেন, রাজনৈতিক পৃষ্টপোষকতায় যদি এদের রক্ষার করার চেষ্টা করা হয় তাহলে ১৫ হাজার শিক্ষা ক্যাডার কর্মকর্তাদের সংগঠন বিসিএস সাধারণ শিক্ষা সমিতি তা মানবে না। আমরা বাধ্য হবো এর চেয়ে কঠোর কর্মসূচি ঘোষণা করতে। আমরা শিক্ষক ক্যাডার কর্মকর্তা, আমরা স্বার্থের ক্ষেত্রে ছাড় দিতে পারি কিন্তু সম্মানের প্রশ্নে একফোটাও আপোষ করবো
না। যেভাবে দেশের বিভিন্ন স্থানে শিক্ষা ক্যাডার কর্মকর্তাগণ লাঞ্ছনার শিকার হচ্ছেন এভাবে চলতে থাকলে প্রয়োজনে আমরা দেশব্যাপী অনির্দিষ্টকালের কর্মবিরতির ডাক দেবো।
পরিশেষে বক্তারা শিক্ষকদের ওপর হামলা এবং মারধরের নিন্দা জানান। একই সঙ্গে তারা হামলাকারীদের গ্রেপ্তারের মাধ্যমে দ্রুত বিচারের আওতায় আনার দাবি জানান।