সন্ধ্যা ৭:৪৭, ৭ই ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

শিরোনাম:







মিল্কিওয়ের ‘রাক্ষুসে’ ব্ল্যাকহোলের ছবি প্রকাশ

প্রথমবারের মতো জ্যোতির্বিজ্ঞানীরা মহাবিশ্বের ছায়াপথের কেন্দ্রে থাকা রহস্যময় দৈত্যাকার কৃষ্ণ গহ্বরের আলোকচিত্র ধারণ করেছেন।

বিজ্ঞানীদের দাবি, সব কয়টি সৌরজগতে এমনকি আমাদের সৌরজগতের কেন্দ্রেও এমন ব্ল্যাক হোল রয়েছে। যার মধ্যে দিয়ে যেতে পারে না পদার্থ ও আলো। এমন এক অস্তিত্বের ছবিকে ধরা নিঃসন্দেহে একটি বড় বিষয় ছিল। ইভেন্ট হরাইজেন টেলিস্কোপ কোলাবোরেশনের তরফে এই ছবি তুলে ধরা হয়। যা গোটা বিশ্বকে হতবাক করেছে।

ছবিতে একটি কেন্দ্রীয় অন্ধকার অঞ্চল, যেখানে গহ্বরটি অবস্থিত। এটি প্রচণ্ড মহাকর্ষীয় ত্বরান্বিত শক্তিতে সুপার-হিটেড গ্যাস থেকে আসা আলোর মাধ্যমে প্রদক্ষিণ করে।

এর আগেও বহুবার মহাকাশ বিজ্ঞানীরা ব্ল্যাক হোলকে ধরার চেষ্টা করেছেন। তবে আলোর গতিবিধি ও ব্ল্যাক হোলের বৈশিষ্ট্য কখনওই এর সহায়তা করতে পারেনি। মিল্কি ওয়েতে এই ব্ল্যাক হোলকে বলা হচ্ছে ‘স্যাজিটেরিয়াস এ’। আমাদের সৌরজগতের সূর্যের থেকেও ৪ মিলিয়ন গুণ এটি বড়। একেবারে যেন দৈত্যাকার। তবে এটা বিশ্বের প্রথম ব্ল্যাক হোলের ছবি নয়।