সন্ধ্যা ৭:২১, ২৫শে জুন, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ







রাহুলকে ১০ ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদ, আবারও তলব

ন্যাশনাল হেরাল্ড মামলায় সোমবার রাহুল গান্ধীকে ১০ ঘণ্টারও বেশি সময় ধরে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে ইডি (এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট)। দু’দফায় তাকে এতো সময় ধরে জিজ্ঞাসাবাদ করেন কর্মকর্তারা। মঙ্গলবার আবারো তাকে তলব করা হয়েছে।

এনডিটিভি জানিয়েছে, কংগ্রেস সাংসদ রাহুল গান্ধীকে প্রথম দফায় ৩ ঘণ্টা, দ্বিতীয় দফায় ৭ ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়।

সোমবার রাহুল গান্ধীর ইডি দপ্তরে হাজিরা দেওয়াকে কেন্দ্র করে রাজপথে নামে কংগ্রেস। নরেন্দ্র মোদি প্রশাসনের বিরুদ্ধে রাজনৈতিক প্রতিহিংসার অভিযোগ তুলে চলেছে অবস্থান-বিক্ষোভ।

পুলিশি ধরপাকড় ঘিরে দিল্লির রাস্তা রণক্ষেত্রে পরিণত হয়। সকাল থেকেই রাহুল গান্ধীর বাসভবন, কংগ্রেস দপ্তর এবং ইডি দপ্তরের বাইরে বিপুল সংখ্যক পুলিশ মোতায়েন করা হয়।

সোমবার সকাল সাড়ে ১০টা নাগাদ রাহুল গান্ধীর বাসভবনে পৌঁআন প্রিয়াঙ্কা গান্ধী। সেখান থেকে দুজনে গিয়ে পৌঁছান কংগ্রেসের দপ্তরে। কংগ্রেসের শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে মিছিল করে হেঁটে ইডি’র দপ্তরের দিকে রওনা দেন রাহুল। কিন্তু, কিছুটা দূরেই মিছিল আটকে দেয় কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অধীনস্থ দিল্লি পুলিশ। শুরু হয় ধস্তাধস্তি। কংগ্রেস কর্মীদের টেনে হিঁচড়ে পুলিশ ভ্যান ও বাসে তোলা হয়। পুলিশের সঙ্গে ধস্তাধস্তিতে পি চিদম্বরমের পাঁজরের হাড়ে ফাটল ধরেছে বলে কংগ্রেস নেতাদের দাবি।

কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক রণদীপ সুরজেওয়ালা বলেন, “চিদম্বরমের হাড় ভেঙে গেছে। ২০১৫ সালে ইডি এই মামলা বন্ধ করেছিল। এখন বিজেপির কাছে কিছু না থাকায়, ভিতু মোদি সরকার এ ধরনের অঘোষিত জরুরি অবস্থা জারি করছে।”

প্রিয়াঙ্কা গান্ধীর সঙ্গে গাড়িতে করে ইডি’র দপ্তরে পৌঁআন রাহুল গান্ধী। এরপর প্রথম দফায় জিজ্ঞাসাবাদ শুরু হয়। দুপুরের খাবারের বিরতিতে ইডি অফিস থেকে বেরিয়ে হাসপাতালে ভর্তি সোনিয়া গান্ধীর সঙ্গে দেখা করতে যান রাহুল। তারপর আবার ইডি দপ্তরে ফিরে যান। শুরু হয় দ্বিতীয় দফায় জিজ্ঞাসাবাদ।

ইডি’র কর্মকর্তারা রাহুল গান্ধীর কাছে জানতে চান, ইয়ং ইন্ডিয়ান কম্পানি তৈরির সিদ্ধান্ত কে নিয়েছিলেন? কম্পানি তৈরির বিষয়ে যে বৈঠক হয়েছিল, সেখানে কি রাহুল গান্ধী উপস্থিত ছিলেন? এছাড়া ইয়ং ইন্ডিয়ান কম্পানির কয়টি বৈঠকে তিনি উপস্থিত ছিলেন কিনা? কোথায় কোথায় তার সম্পত্তি রয়েছে? বিদেশে তার কোনো সম্পত্তি আছে কিনা? ইয়ং ইন্ডিয়ান কম্পানিতে তিনি কিভাবে পরিচালক হয়েছিলেন? তিনি কিভাবে শেয়ার কিনেছিলেন? শেয়ার কেনার জন্য টাকা দিয়ে থাকলে তা, কোন অ্যাকাউন্ট থেকে এবং কিভাবে দিয়েছিলেন?

এ প্রসঙ্গে কেন্দ্রীয় নারী ও শিশু কল্যাণমন্ত্রী স্মৃতি ইরানি বলেন, “কংগ্রেসের পক্ষ থেকে যে প্রতিরোধ করা হচ্ছে, এটা দেশের গণতন্ত্র নয়। কংগ্রেসের গান্ধী পরিবারের ২ হাজার কোটি টাকার সম্পত্তি বাঁচানোর প্রয়াস।”

এ প্রসঙ্গে তৃণমূল সাংসদ সৌগত রায় বলেন, “ইডি কেন্দ্রের হাতিয়ার। বিরোধীদের বিরুদ্ধে ব্যবহার করার অস্ত্র। আগে আমাদের বিরুদ্ধে ব্যবহার করেছে। এখন কংগ্রেসের বিরুদ্ধে ব্যবহার করছে। রাহুল তো গেছেন। তবে সন্দেহ আছে, তার বিরুদ্ধে অভিযোগের কোনো সারবত্তা আছে কি না।”

১০ ঘণ্টার বেশি সময় ধরে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে রাতে ইডি’র অফিস থেকে বের হন রাহুল গান্ধী। মঙ্গলবার ফের তাকে ডেকে পাঠিয়েছে ইডি।
সূত্র: এনডিটিভি