রাত ১১:০৮, ১১ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

শিরোনাম:







মোসাদ্দেক-লিটনে জিম্বাবুয়েকে হারিয়ে সিরিজে সমতা টাইগারদের

সিরিজ বাঁচানোর লক্ষ্যে জিম্বাবুয়ের দেয়া ১৩৬ রানের লক্ষ্য ব্যাচ করতে নেমে ১৫ বল হাতে রেখে ৭ উইকেটের সহজ জয়ের দেখা পায় বাংলাদেশ। ফলে তিন ম্যাচ টি-টোয়েন্টি সিরিজের দুই ম্যাচ শেষে ১-১ সমতায় ফিরল বাংলাদেশ। এটি নতুন অধিনায়ক হিসেবে ক্যারিয়ারে প্রথম জয় নুরুল হাসান সোহাগের নেতৃত্বে।

ব্যাটারদের ওপর তাই এবার তেমন চাপ ছিল না। তারপরও সুবিধা করতে পারলেন না মুনিম শাহরিয়ার। আরও একবার ব্যর্থ হয়ে ফিরলেন।

আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে খেলে যাওয়া লিটন দাসের দুরন্ত ফর্ম ছুটছেই। বাংলাদেশ দলে অন্যতম ধারাবাহিকতার প্রতীক হয়ে ওঠা এই ব্যাটার ক্যারিয়ারের ষষ্ঠ টি-টোয়েন্টি ফিফটি তুলে নিলেন মাত্র ৩০ বলে।

উদ্বোধনী জুটিতে ৩৭ রান তোলেন দুই টাইগার ওপেনার মুনিম শাহরিয়ার ও লিটন দাস। ব্যাট হাতে ফের একবার ব্যর্থ হয়েছেন তরুণ ওপেনার মুনিম শাহরিয়ার। ইনিংসের পঞ্চম ওভারে রিচার্ড এনগারাভার বলে বোল্ড হয়ে ফেরেন তিনি। আগের ম্যাচে মাত্র ৪ রান করেছিলেন, ফেরার আগে ১ চারে ৮ বল থেকে করেছেন মোটে ৭ রান।

দ্বিতীয় উইকেটে লিটন ও বিজয় ৪১ রানের জুটি গড়েন। দলীয় ৭৮ রানে ক্যারিয়ারের ৬ষ্ঠ অর্ধশত তুলে উইলিয়ামসের বলে এলবির শিকার হয়ে বিদায় নেন লিটন। তার আগে অবশ্য ৩৩ বলে ৬ চার ও ২ ছয়ে ৫৬ রানের ইনিংস খেলেন।

লিটনের বিদায়ের ৪ বল পরেই তিনে নেমে আনামুল হক বিজয় এই ম্যাচেও খুব একটা সুবিধা করতে পারেননি। সিকান্দার রাজার শিকার হয়ে বিদায় নেন ১৫ বলে ১৬ রান করা এনামুল হক বিজয়।

৮১ রানে ৩ উইকেট হারানোর পর বাকি সময় নির্বিঘ্নে খেলে দলকে জয়ের বন্দরে পৌঁছে দেন আফিফ হোসেন ও নাজমুল হোসেন শান্ত। দুইজনের ৫৫ রানের অবিচ্ছিন্ন জুটিতে ১৫ বল হাতে রেখে জয় নিশ্চিত করেন দুই ব্যাটসম্যান। আফিফ ৩০ ও শান্ত ১৯ রানে অপরাজিত থাকেন। জিম্বাবুয়ের পক্ষে রাজা, উইলিয়ামস ও রিচার্ড এনগার্ভা ১টি করে উইকেট শিকার করেন।

আগামী ২ আগস্ট একই মাঠে তৃতীয় ও শেষ টি-টোয়েন্টিতে জিম্বাবুয়ের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। যেটিকে অঘোষিত ফাইনাল হিসেবে রূপ নিয়েছে।