রাত ৩:৫৭, ৩০শে জানুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ

শিরোনাম:







নীলফামারীর ৩ আইনজীবীকে হাইকোর্টে তলব

নীলফামারী জেলা আদালতে বিচারপ্রার্থীদের সামনে বিজ্ঞ বিচারককে অশালীন ভাষায় অশ্লীল শব্দ প্রয়োগ, দুর্ব্যবহার আইনজীবীদের এখন প্রতিদিনের রুটিন। আইনজীবীদের চেম্বারে বিজ্ঞ বিচারকদের নিয়ে ব্যবহারের অযোগ্য ভাষায় গালাগাল ও ঠাট্টা প্রদর্শন করে নিজেদের বিশেষ ব্যক্তি হিসেবে উপস্থাপন এর বিষয়টি বিজ্ঞ আদালতের দৃষ্টিগোচর হয়।

আদালতে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি, আইন-আদালতের প্রতি বৃদ্ধাঙ্গুলি প্রদর্শন এবং বিচারকের সঙ্গে অপেশাদারিত্বমূলক, আক্রমণাত্মক ও দুর্ব্যবহারের অভিযোগে ব্যাখ্যা দিতে নীলফামারী জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি মো. মোমতাজুল হক, আইনজীবী মো. আজহারুল ইসলাম, আইনজীবী ফেরদৌস আলমকে তলব করেছেন হাইকোর্ট। আগামী ১৪ ফেব্রুয়ারি তাদেরকে সশরীরে আদালতে হাজির হতে বলা হয়েছে।

বুধবার বিচারপতি জে বি এম হাসান ও বিচারপতি রাজিক আল জলিলের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ প্রদান করেন।
এর আগে একই রকম ঘটনা ঘটায় পিরোজপুর, খুলনা, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আইনজীবী নেতাদের তলব করেছে হাইকোর্ট।
ব্রাহ্মণবাড়িয়ার জেলা জজ বেগম শারমিন নিগারের বিরুদ্ধে অশ্লীল ও কুরুচিপূর্ণ স্লোগান দেওয়ার বিষয়ে হাইকোর্ট বলেছে, সেদিন আইনজীবীদের ভাষা ছিল অশ্লীল। অল্প শিক্ষিত মানুষ এমনকি কমলাপুরের কুলিরাও এ ধরনের ভাষা ব্যবহার করে না।